india
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এই মুহূর্তে দক্ষিণ আফ্রিকায় বসেছে যুব বিশ্বকাপের আসর। গতবারের চ্যাম্পিয়ন টিম ইন্ডিয়ার এবারও জয়ের রথ অব্যাহত। ভারতের সিনিয়র দাদারা যে কাজ করতে ব্যর্থ হয়েছেন ২০১৯-এর একদিনের বিশ্বকাপে, সেই কাজে দাদাদের পেছনে ফেলে অনেকটাই এগিয়ে গিয়েছে ভাইয়েরা। সেমিফাইনালে পাকিস্তানকে উড়িয়ে দিয়ে ফাইনালে তারা। গ্রুপ লিগে নিউজিল্যান্ড, জাপান এবং শ্রীলঙ্কাকে উড়িয়ে দিয়ে, গ্রুপ এ-র লিগ টেবিলের শীর্ষে থেকে সেমিফাইনালে প্রবেশ করেছিল অনূর্ধ্ব ১৯ ভারতীয় দল। সেমিফাইনালেও পাকিস্তানকে উড়িয়ে দিয়ে এখনো পর্যন্ত অপরাজিত থেকে ফাইনালে প্রবেশ করেছে ভারতের ছোটোরা। আজ, ৯ ফেব্রুয়ারি অপর ফাইনালিস্ট দল বাংলাদেশের মুখোমুখি হবে ভারত। ভারতীয় সময় দুপুর ১:৩০ মিনিটে। তার আগে একবার ভারতীয় দলের খেলোয়াড় এবং তাদের শক্তির বিশ্লেষণ দেখে নেওয়া যাক।

ব্যাটসম্যান

ভারতীয় অনূর্ধ্ব ১৯ বিশ্বকাপের দলে ৫ জন প্রধান ব্যাটসম্যান রয়েছেন। সবচেয়ে বেশি নজর থাকবে যশস্বী জয়সওয়াল আর অধিনায়ক প্রিয়ম গর্গের উপর। যশস্বী এখনো পর্যন্ত ৯টি লিস্ট-এ ম্যাচে ৮৪ গড়ে ৬৭৭ রান করেছেন। এর মধ্যে একটি ডবল সেঞ্চুরিও রয়েছে। অধনায়ক প্রিয়ম গর্গ দীর্ঘ সময় ধরে ঘরোয়া ক্রিকেটে রান করে চলেছেন। পাকিস্তানের বিরুদ্ধে যশস্বী জয়সওয়াল সেঞ্চুরি করেছিলেন সেমিফাইনালে। তাকে সঙ্গ দেওয়ার জন্য দলে রয়েছেন তিলক বর্মা, দিব্যাংশ সাক্সেনা আর শাশ্বত রাওতের মতো ব্যাটসম্যান। প্রিয়ম আর যশস্বী ছাড়াও এই তিন ব্যাটসম্যানও নিয়মিত ভালো প্রদর্শন করে চলেছেন।

উইকেটকিপার

ভারতীয় অনুর্ধ্ব ১৯ দলে ধ্রুব চন্দ জুরেলের সঙ্গে কুমার কুশাগ্রও রয়েছেন উইকেটকিপার হিসেবে। জুরেল বিশ্বকাপে ভারতীয় দলের সহ-অধিনায়কও। জুরেলের অধিনায়কত্বেই ভারতীয় দল অনূর্ধ্ব ১৯ এশিয়া কাপে শ্রীলঙ্কাকে হারিয়েছিল। কুশাগ্র এখনো পর্যন্ত অনূর্ধ্ব ১৯ ভারতীয় দলের হয়ে ৪টি ম্যাচ খেলেছেন আর তাঁকে দ্বিতীয় উইকেটকিপার হিসেবে দলে রাখা হয়েছে।

অলরাউন্ডার

এই বিশ্বকাপের দলে অলরাউন্ডার হিসেবে রয়েছেন মিজোরামের অলরাউন্ডার দিব্যাংশ যোশী। সেই সঙ্গে দলে রয়েছেন শুমাঙ্গ হেগড়েও। শুভাঙ্গ বাঁ হাতে স্পিন করার পাশাপাশি নিচের দিকে এসে দ্রুত গতিতে রানও করতে পারেন।

স্পিন বোলার

রাজস্থানের রবি বিষ্ণোই আর মুম্বাইয়ের অথর্ব অঙ্কোলেকর অনুর্ধ্ব ১৯ বিশ্বকাপের দলে রয়েছেন বিশেষজ্ঞ স্পিনার হিসেবে। অথর্ব অনুর্ধ্ব ১৯ এশিয়াকাপের ফাইনালে ৫ উইকেট নিয়ে ভারতকে জয় এনে দিয়েছিলেন। এশিয়াকাপে অথর্ব মোট ১৫টি উইকেট নিয়েছিলেন। অন্যদিকে লেগ স্পিনার রবি বিষ্ণোই এখনও পর্যন্ত ৬টি লিস্ট-এ ম্যাচে ৮টি আর ৬টি টি-২০ ম্যাচে ৬টি উইকেট নিয়েছেন।

দ্রুতগতির বোলার

ভারতীয় দল চারজন প্রধান জোরে বোলার নিয়ে বিশ্বকাপে গিয়েছে। এর মধ্যে বাঁহাতি জোরে বোলার আকাশ সিং আর সুশান্ত মিশ্রা রয়েছেন। এছাড়াও রয়েছেন ডানহাতি জোরে বোলার কার্তিক ত্যাগী আর বিদ্যাধর পাটিল। সুশান্ত গত ৮টি যুব ওয়ানডেতে ১৯টি উইকেট নিয়েছেন। কার্তিক উত্তরপ্রদেশের হয়ে খেলা ৫টি লিস্ট-এ ম্যাচে ৯টি উইকেট নিয়েছেন। আকাশ সিং এশিয়াকাপ ফাইনালে ৩টি উইকেট নিয়েছিলেন। অন্যদিকে বিদ্যাধরও এশিয়া কাপের পর আফগানিস্তানের বিরুদ্ধে সিরিজে যথেষ্ট ভালো বোলিং করেছিলেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here