থাকবে না মোটরগাড়ি, এমনকি রাস্তাও; কার্বনমুক্ত শহর নির্মাণের পথে সৌদি আরব

ধরুন এমন এক শহর যাতে কোনো রাস্তা নেই, নেই কোনো মোটরগাড়িও। কাজেই দূষণও দূরের কথা সে শহরে। কিন্তু রাস্তা, গাড়ি এসব না থাকলে মানুষ চলাচল করবে কী করে একটা শহরে? এমন শহরের পরিকল্পনা রূপকথার মতোই শোনালেও, তা সত্যি হতে চলেছে এবার। অন্তত তেমনটাই টেলিভিশনে ঘোষণা করলেন সৌদি আরবের প্রিন্স মহ. বিন সলমন।

এই ভবিষ্যৎ প্রকল্পটির নাম রাখা হয়েছে ‘দ্য লাইন’। যা ‘নিওম’ নামের বৃহত্তর একটি বিলিয়ন ডলার প্রোজেক্টের অংশ। ১৭০ কিলোমিটার দীর্ঘ ও ৫০০ বর্গকিলোমিটারের এই আলট্রা-মডার্ন শহরের নির্মাণকাজ চলতি বছরের প্রথম চতুর্থাংশেই শুরু হতে চলেছে বলে জানান প্রিন্স সলমন। এই শহরই বাসস্থান হয়ে উঠবে প্রায় ১০ লক্ষ মানুষের। পাশপাশি ২০৩০ সালের মধ্যেই প্রায় ৪ লক্ষ কর্মসংস্থানের ব্যবস্থাও করা হবে এই শহরে। শুধুমাত্র শহরটির পরিকাঠামো গঠনের জন্যই প্রিন্স বরাদ্দ করেছেন ১০০-২০০ বিলিয়ন মার্কিন ডলার।

তবে আশ্চর্যের বিষয়, বৈশ্বিক তৈল রপ্তানিতে প্রথম স্থানে থাকা সৌদি আরবের এমন প্রকল্প ঘোষণায় তাজ্জব গোটা বিশ্ব। একদিকে যেমন অনেকে অভিবাদন জানিয়েছেন যুবরাজের এই উদ্যোগকে। তেমনই এই ঘোষণার জেরেই চলছে বিশ্বজুড়ে বিতর্ক। এই প্রকল্প কতটা বাস্তবসম্মত, তা নিয়েই ধন্ধে পড়েছেন বিশ্লেষকরা। কিন্তু যাবতীয় বিতর্কের ঊর্ধ্বেই প্রিন্স জানিয়েছেন এই শহরে থাকছে আল্ট্রা-হাই স্পিডের পরিবহন ব্যবস্থা। এমনকি শহরের দুই প্রান্তের দূরত্ব অতিক্রম করা যাবে ২০ মিনিটের মধ্যেই। তাও সম্পূর্ণ বিদ্যুৎচালিত পরিবহনে। ফলে হবে না বিন্দুমাত্র কার্বন নির্গমন।

তবে যাই হোক, এই প্রকল্প সত্যি হলে খনিজ তেল রপ্তানির বাইরে সরকারি আয়ের আরও রাস্তা খুলে যাবে আরবের কাছে। সেইসঙ্গে প্রযুক্তির নিরিখে পৃথিবীর প্রথমসারির দেশগুলির মধ্যে আরও খানিকটা জায়গা পাকা করে নেবে আরব। এখন দেখার কত দ্রুত বাস্তবায়িত হয় এই গোটা প্রকল্প...

Powered by Froala Editor

More From Author See More

Latest News See More