'শ্রেষ্ঠ সাংবাদিক' হিসেবে ফুকুওকা পুরস্কার পেলেন পি সাইনাথ

শীততাপ নিয়ন্ত্রিত কাচের ঘরে বসে সাংবাদিকতা নয়। বরং, এই মহামারীর সময়েও তিনি পায়ে হেঁটেই ঘুরে বেড়িয়েছেন ভারতের প্রান্তিক অঞ্চলগুলিতে। একক প্রচেষ্টাতে চালিয়েছিলেন এক বৃহত্তর সমীক্ষা। তুলে এনেছিলেন গ্রামীণ ভারতের মানুষদের আর্থিক অনটন, স্বাস্থ্য পরিকাঠামোর অভাব, অপর্যাপ্ত শিক্ষা ব্যবস্থা আর অসহায়তার ছবি। পালাগুমি সাইনাথ। গ্রামীণ স্তরের বাস্তব পরিস্থিতির চিত্রায়ণের জন্য এবার ফুকুওকা পুরস্কার পেলেন দক্ষিণ ভারতের এই খ্যাতনামা সাংবাদিক।

আজ সন্ধ্যাতেই ঘোষিত হয় ফুকুওকা পুরস্কারের তালিকা। সাইনাথ ছাড়াও এই পুরস্কার পেয়েছেন জাপানের ঐতিহাসিক কিসিমোতো মিও এবং থাইল্যান্ডের শিল্পী প্রাবদা ইয়ুন। এশিয় সংস্কৃতির প্রসার এবং জনসচেতনা বৃদ্ধির জন্য প্রতি বছর প্রদান করা হয়ে থাকে এই পুরস্কার। গ্র্যান্ড প্রাইজ, অ্যাকাডেমিক প্রাইজ এবং সাহিত্য-সংস্কৃতি— এই তিনটি বিভাগে পৃথকভাবে দেওয়া হয় এই সম্মাননা। যার মধ্যে সাইনাথ পেয়েছেন গ্র্যান্ড পুরস্কার। তিনটি বিভাগের মধ্যে এই পুরস্কারটিই বিবেচিত হয় শ্রেষ্ঠ হিসাবে। এমনকি ম্যাগসেসে সম্মাননার সমতুল্য বলেই মনে করা হয় ফুকুওকা গ্র্যান্ড পুরস্কারকে। আগামী সেপ্টেম্বর মাসে তাঁর হাতে পুরস্কার তুলে দেবে ফুকুওকা কমিটি। তবে কোভিড পরিস্থিতির কথা মাথায় রেখেই এবার অনলাইনেই আয়োজিত হবে ফুকুওকার পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠান।

মাদ্রাজের এক তেলেগু পরিবারে জন্ম সাইনাথের। সম্পর্কে ভারতের প্রাক্তন রাষ্ট্রপতি ভি ভি গিরি’র নাতি তিনি। তবে পরিবারের সঙ্গে রাজনীতির সরাসরি যোগাযোগ থাকলেও, সেই প্রেক্ষাপট খুব একটা আকৃষ্ট করেনি তাঁকে। বদলে বেছে নিয়েছিলেন সাংবাদিকতাকেই। জওহর লাল নেহরু বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ইতিহাসে স্নাতক করার পর অভিষেক সংবাদ মাধ্যমে। দীর্ঘদিন কাজ করেছেন ভারতের প্রথম সারির পত্রিকা ‘দ্য হিন্দু’-তে। তবে গ্রামীণ ভারতের ওপর কাজ করার নেশায় পরবর্তীতে ছেড়েছেন সেই চাকরিও। গ্রামীণ উন্নয়নের ক্ষেত্রে তাঁর লেখা “এভরিবডি লাভস আ গুড ড্রাউট” বইটি এককথায় প্রামাণ্যই বটে। গ্রামীণ ভারতের ওপর তাঁর কাজের জন্য ২০০৭ সালে রমন ম্যাগসেসে সম্মাননাও পেয়েছিলেন তিনি।

সম্প্রতি প্রকাশিত ফুকুওকা পুরস্কারের উদ্ধৃতিতে প্রতিফলিত হয়ে সেই কথাই। উজ্জ্বল কেরিয়ার ছেড়ে একনিষ্ঠভাবে এমন একটা কাজ চালিয়ে যাওয়াই প্রশংসিত হয়েছে আন্তর্জাতিক মঞ্চে। এর আগে এই পুরস্কার পেয়েছেন রোমিলা থাপার, আমজাদ আলি খানের মতো ব্যক্তিত্বরা। শেষ ২০১৬ সালে ভারতীয় হিসাবে ফুকুওয়া পুরস্কারে সম্মানিত হয়েছিলেন এ আর রহমান। তারপর দীর্ঘ চার বছরের খরা। এবার তাঁর হাত ধরেই আরও একবার শ্রেষ্ঠত্বের শিরোপা পেল ভারত। এই স্বীকৃতিকে ঐতিহাসিক বললেও বোধ হয় কম হয় খানিক…

আরও পড়ুন
সাও পাওলো চলচ্চিত্র উৎসবে সেরার পুরস্কার তিন বাঙালির

Powered by Froala Editor

আরও পড়ুন
জাতীয় পুরস্কার পেলেন দেশের প্রথম স্বঘোষিত সমকামী অভিনেতা বেঞ্জামিন

More From Author See More

Latest News See More