হুইলচেয়ারে ২৪ ঘণ্টায় ২১৫ কিলোমিটার পাড়ি, গিনেস রেকর্ড পুরীর ব্যক্তির

দুই পায়ে উঠে দাঁড়াতে পারেন না কমলাকান্ত নায়ক। হুইলচেয়ারেই চলাফেরা করেন তিনি। আর সেই হুইলচেয়ারকে সঙ্গী করেই এবার গিনেস বুকে নাম তুললেন কমলাকান্ত। হুইলচেয়ারে চড়ে ২৪ ঘণ্টায় সবচেয়ে ২১৫ কিলোমিটার পথ অতিক্রম করেছেন তিনি। গিনেস বুকের তথ্য অনুযায়ী এখনও এই দূরত্ব সর্বোচ্চ। শারীরিক প্রতিবন্ধকতাকে জয় করে দেশের ক্রীড়াজগতের উজ্জল মুখ হয়ে উঠেছেন ওড়িশার কমলাকান্ত (Kamala Kanta Nayak)। এবার তাঁর সাফল্যের তালিকায় যুক্ত হল নতুন পালক।

ওড়িশার পুরী শহরের বাসিন্দা কমলাকান্ত। শনিবার সকালেই হুইলচেয়ার নিয়ে বেরিয়ে পড়েছিলেন রেকর্ড জয়ের উদ্দেশ্যে। রাজমহল স্কোয়ার থেকে মাস্টার ক্যান্টিন স্কোয়ারের মাঝের সাইকেল ট্র্যাকই ছিল তাঁর ময়দান। এর আগে ২০০৭ সালে পর্তুগালের মারিও ত্রিনিদাদ ২৪ ঘণ্টায় ১৮২ কিলোমিটার হুইলচেয়ার যাত্রা করে রেকর্ড তৈরি করেছেন। কমলাকান্ত জানতেন, এই দূরত্ব অতিক্রম করতে তাঁর ২৩ ঘণ্টার বেশি সময় লাগবে না। অবশ্য বাস্তবে ২২ ঘণ্টার মাথায় ত্রিনিদাদের রেকর্ড ভেঙে দেন তিনি। প্রথম ১২ ঘণ্টায় ১১৮ কিলোমিটার অতিক্রম করেই গিনেস বুকের বিচারকদের চমকে দিয়েছিলেন তিনি। আর ২৪ ঘণ্টার শেষে দেখা যায় তাঁর অতিক্রান্ত দূরত্ব ২১৫.৪ কিলোমিটার।

কমলাকান্তের রেকর্ড তৈরির অভিজ্ঞতা অবশ্য এই প্রথম নয়। এর আগে ২০২০ সালে হুইলচেয়ারে মোট ৪২০০ কিলোমিটার অতিক্রম করে রেকর্ড তৈরি করেছিলেন তিনি। তাছাড়া এখনও অবধি ১৫ ঘণ্টায় ১৩৯ কিলোমিটারের হুইলচেয়ার ম্যারাথনজয়ী একমাত্র ভারতীয় তিনি। এখনও অবধি তিনি ১৬টি পূর্ণদৈর্ঘ্যের ম্যারাথন এবং ১৩টি অর্ধ-ম্যারাথন জিতেছেন। ওড়িশার রাজ্য হুইলচেয়ার বাস্কেটবল টিমেরও অধিনায়ক তিনি। কমালাকান্তের একের পর এক সাফল্যে আনন্দ প্রকাশ করেছে ওড়িশার ক্রীড়া বিভাগ এবং সামাজিক সুরক্ষা বিভাগও। কমলাকান্ত নিজেও আনন্দিত এই সাফল্যে। আত্মবিশ্বাস পুরোপুরি থাকলেও গিনেস বুকের মতো তালিকায় নাম তোলার বিষয়ে কিছুটা চিন্তা তো ছিলই। তবে এখানেই থেমে থাকতে চান না তিনি। নিজেই নিজেকে ছাপিয়ে যেতে ইচ্ছুক কমলাকান্ত। নানা ধরণের খেলার মধ্যে অবশ্য ম্যারাথনই তাঁর সবচেয়ে প্রিয়। একদিন প্যারালিম্পিক ম্যারাথনে ভারতের হয়ে প্রতিনিধিত্বের স্বপ্নও দেখেন কমলাকান্ত।

Powered by Froala Editor

আরও পড়ুন
গৃহযুদ্ধে হাত-পা হারিয়েও শান্তির জন্য লড়ছেন কলোম্বিয়ান প্যারা-সাইক্লিস্ট

More From Author See More