আমাজন নিধনে জড়িত বহুজাতিক ফ্যাশন ও ডিজাইন সংস্থাগুলিও

অ্যাডিদাস, জারা, নাইকি, রিবোক কিংবা কেলভিন ক্লেইন— বহুজাতিক এই ব্র্যান্ডগুলির সঙ্গেই জড়িয়ে রয়েছে আধুনিক প্রজন্মের স্টাইল স্টেটমেন্ট, ফ্যাশন। পশ্চিমি দেশগুলো তো বটেই, ভারত, বাংলাদেশ, দক্ষিণ আফ্রিকার মতো তৃতীয় বিশ্বের দেশগুলিতেও একচেটিয়া ব্যবসা সংস্থাগুলির। এবার তাদের দিকেই উঠল অভিযোগের আঙুল। বহুজাতিক এই সংস্থাগুলিই আমাজনের অরণ্যনিধনের (Amazon Deforestation) পিছনে পরোক্ষে দায়ী। আন্তর্জাতিক সংস্থা ‘স্ট্যান্ড.আর্থ’-এর (STAND.earth) সাম্প্রতিক সমীক্ষায় উঠে এল এমন তথ্যই। 

প্রশ্ন ওঠা স্বাভাবিক, বহুজাতিক ফ্যাশন ব্র্যান্ড এবং ডিজাইন হাউসগুলির সঙ্গে কীভাবে জড়িয়ে রয়েছে বৃক্ষছেদন? কেননা, বৃক্ষজাত কিংবা কাঠের তৈরি কোনো সামগ্রীই যে উৎপাদন করে না সংশ্লিষ্ট সংস্থাগুলি। তবে? 

এই উত্তর খুঁজতে গেলে, নজর দিতে হবে সংশ্লিষ্ট সংস্থাগুলির উৎপাদন শৃঙ্খলের দিকে। মূলত, চামড়ার তৈরি পোশাক, জুতো ও অন্যান্য নানান সামগ্রী তৈরি করে সংস্থাগুলি। আর সেসব আমদানি করা হয় মূলত ব্রাজিল থেকে। শুধু চামড়ার নিরিখেই নয়, বিশ্বের বৃহত্তম গোমাংস সরবরাহকারী দেশের তালিকাতেও প্রথমেই রয়েছে ব্রাজিলের নাম। এই দুটি জিনিসেরই উত্তরোত্তর চাহিদা বৃদ্ধি পাওয়ায়, ক্রমশ গবাদি পশুর বিচরণক্ষেত্রও বৃদ্ধি পাচ্ছে ব্রাজিলে। নির্বিচারে বননিধন করেই তৈরি করা হচ্ছে সেই বিচরণভূমি এবং ট্যানারি। 

সব মিলিয়ে, প্রায় ৫ লক্ষ সংগৃহীত তথ্যের ওপর ভিত্তি করেই এই সমীক্ষা করা হয়। আর সেখান থেকেই জানা গেছে, ট্যানারি ও গবাদি পশুর ফার্মের কারণে বিগত এক দশকে ৬৭ লক্ষ হেক্টর অরণ্যনিধন হয়েছে আমাজনে। যার অধিকাংশটার পিছনেই দায়ী ব্রাজিলের বৃহত্তম লেদার প্রস্তুতকারক সংস্থা জেবিএস। এই সংস্থাটির সঙ্গে প্রত্যক্ষ বা পরোক্ষভাবে জড়িত প্রাডা, গেস, নাইকি, জারা, অ্যাডিডাস, পুমা, কোচ, এইচ অ্যান্ড এম, টেড বেকার, জর্জিও আর্মানি, কেলভিন ক্লেইনের মতো সংস্থা। প্রত্যেকটি ফ্যাশন হাউসেরই সঙ্গেই পৃথক পৃথকভাবে ব্যবসায়িক সম্পর্ক রয়েছে জেবিএস-এর।

আরও পড়ুন
ধারাবাহিক খরার শিকার আমাজন, ৫০ বছরেই পরিণত হতে পারে সাভানায়

তবে একাধিকবার আন্তর্জাতিক চর্চা চললেও, অরণ্যনিধন প্রতিরোধে কোনোরকম পদক্ষেপ নেয়নি বলসোনারো প্রশাসন। এমনটাই অভিযোগ ‘স্ট্যান্ড.আর্থ’-এর। প্রশাসনিক আয় এবং দেশের জিডিপি বৃদ্ধির জন্য গবাদি পশুর ফার্মের জন্যও সুনির্দিষ্ট পরিসীমা বেঁধে দিচ্ছে না ব্রাজিল সরকার। অন্যদিকে, লেদারের এই ক্রমবর্ধমান চাহিদা মেটাতে গিয়ে ক্রমশ ঝাঁঝরা হয়ে যাচ্ছে পৃথিবীর ফুসফুস— তার হুঁশ নেই কারোরই…

আরও পড়ুন
৩ মাসেও নিয়ন্ত্রণহীন দাবানল, আমাজনের আগুন ফেরাচ্ছে পুরনো স্মৃতি

Powered by Froala Editor

আরও পড়ুন
কার্বন শোষণের চেয়ে নির্গমন বেশি, আমাজনের শেষের শুরু?

More From Author See More

Latest News See More