Radio
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

রেডিও — আম বাঙালির নস্টালজিয়ার সঙ্গে আষ্টেপৃষ্ঠে জড়িয়ে আছে এটি। এখনও বাড়িতে অথবা রাস্তায় যেতে যেতে টুক করে এফএম চালু করে নেন অনেকেই। রেডিও’র আর জে’রা আমাদের ঘরের মানুষ হয়ে গেছেন আজ। এবার সেই রেডিওরই প্রবেশ ঘটছে কয়েদখানায়। শনিবার, দমদম সেন্ট্রাল জেলে উদ্বোধন হল নতুন একটি রেডিও স্টেশনের। নাম ‘রেডিও দমদম’।

চমক এখানেই শেষ নয়। এই পুরো রেডিও স্টেশনের দায়িত্বে থাকবেন দমদম জেলের বন্দিরাই। তাঁরাই হবেন সেখানকার ‘আর জে’। এই নতুন উদ্যোগের পরিকল্পনা করেছেন পশ্চিমবঙ্গের কারা দফতর। তাঁদের অধীনেই থাকবে এই স্টেশন। প্রতিদিন সেখানে শোনা যাবে পাঁচজন বন্দির কণ্ঠস্বর। তাঁরাই হবেন সেই যোগসূত্র।

তুহিন রায়, মনুয়া মজুমদার, জিনিয়া নন্দী, জয়ন্ত সিংহ এবং পীযূষ ঘোষ। অপরাধের জন্য এদের জায়গা হয়েছিল দমদমের এই ঐতিহাসিক সেন্ট্রাল জেলে। এই পাঁচজনকেই রেডিও জকির প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়েছিল। অবশ্য এরা নিজেরাও জেলের ভেতরেই গান বাজনা করেন। কেউ নাট্যচর্চা করেন, কেউ বা গিটার বাজিয়ে খোলা গলায় গেয়ে ওঠেন গান, আবার কেউ দক্ষ সংগঠক, ক্রীড়াপ্রেমী। সবাইকে নিয়েই শুরু হচ্ছে এই ‘রেডিও দমদম’। এই পাঁচজনের হাত ধরেই অনুষ্ঠান এগোবে। পরবর্তীকালে আরও বন্দিদের আর জে হিসেবে আনার কথা ভাবা হচ্ছে।

নানা সময় কারা দফতরের এই সমস্ত উদ্যোগ খবরের শিরোনাম হয়েছে। নানা জায়গায় প্রশংসিতও হয়েছে এমন উদ্যোগ। অপরাধ থেকে দূরে সরে, যাতে তাঁরা নিজেদের প্রতিভা চিনতে পারে, সেই অনুযায়ী সমাজের বুকে কাজও করতে পারে, তারই চেষ্টা করছেন কারা কর্তারা। সাফল্যও এসেছে বিস্তর। এবার সেই মুকুটে যুক্ত হল নতুন আরেকটি পালক। ‘রেডিও দমদম’কে অনেক শুভেচ্ছা ও শুভকামনা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here