সাহিত্যজগতের ইন্দ্রপতন, চলে গেলেন কবি ও লেখিকা নবনীতা দেবসেন

এখন তাহলে আমি বিনা প্রতিবাদে
সব অভিযোগগুলি মাথা উঁচু করে মেনে নিয়ে
স্পষ্টত অন্তরশূন্য প্রস্তরফলক হয়ে যাবো।
আমি আমাদের সব প্রীতিহীনতার পাপ
নিজেই স্বীকার করে নিয়ে, নিজের মন্ডলে সরে যা’বো।

লিখেছিলেন তিনি। অথচ জীবনযুদ্ধে তাঁর লড়াই ছিল অপরিসীম। ক্যানসারে আক্রান্ত হয়েও, ভেঙে পড়েননি কোনোদিনই। হাসিখুশি মানুষটি মনের জোর বজায় রেখেছিলেন শেষ দিন পর্যন্ত। কিন্তু শরীর আর সায় দিল না। বৃহস্পতিবার, সন্ধ্যা ৭.৩০ মিনিটে হিন্দুস্তান পার্কে নিজ বাসভবন ‘ভালো বাসা’য় প্রয়াত হলেন কবি ও লেখিকা নবনীতা দেবসেন।

মৃত্যুকালে তাঁর বয়স হয়েছিল ৮১ বছর। তাঁর পিতা নরেন্দ্র দেব ও মা রাধারাণী দেবী ছিলেন সে-যুগের বিখ্যাত কবি-দম্পতি। ১৯৩৮ সালে জন্ম হয় নবনীতার। বড় হয়েছেন সাহিত্যচর্চার পরিবেশেই। একাধিক ভাষায় পারদর্শী নবনীতা অধ্যাপনা করেছেন দীর্ঘদিন।

আরও পড়ুন
মৃত্যু যেন রসিকতা, নবনীতা হাসছেন, বলছেন – কামেন ফাইট…

নবনীতা দেবসেনের প্রথম কাব্যগ্রন্থ ‘প্রথম প্রত্যয়’ প্রকাশিত হয় ১৯৫৯ সালে। আর প্রথম উপন্যাস ‘আমি অনুপম প্রকাশিত হয় ১৯৭৬-এ। কবিতা ও উপন্যাসের পাশাপাশি, প্রবন্ধ, রম্যরচনা, ভ্রমণকাহিনি, শিশুসাহিত্যেও তাঁর ছিল অবাধ বিচরণ। ১৯৯৯ সালে আত্মজীবনীমূলক রম্যরচনা ‘নটী নবনীতা’ বইয়ের জন্য পান সাহিত্য আকাদেমি পুরস্কার।

তাঁর মৃত্যুতে শোকের ছায়া নেমে এসেছে লেখক ও পাঠকমহলে। হাসিখুশি এবং স্নেহপরায়ণ একজন অভিভাবককে হারানোর বেদনায় আচ্ছন্ন সকলেই।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here