‘কুয়াশা’-র আড়ালে আরও জমাট বাঁধছে ‘অন্তর্ধান’ রহস্য

“পাহাড় আমার খুব প্রিয় জায়গা। আমি সারা বছরই হয় বাড়িতে থাকি, নাহলে পাহাড়ে থাকি।” বলছিলেন গায়ক তিমির বিশ্বাস (Timir Biswas)। আসলে সব বাঙালির জীবনেই তো পাহাড় একটা বড়ো জায়গা জুড়ে থাকে। অথচ দীর্ঘ লকডাউন এবং করোনা আতঙ্কের কারণে সেই দ্বিতীয় ঠিকানায় পা রাখা হয়নি অনেকদিন। এর মধ্যেই বাঙালিকে আবার সেই কুয়াশায় ঢাকা পাহাড়ে পৌঁছে দিয়েছে তিমির বিশ্বাসের নতুন গান ‘কুয়াশা’ (Kuasha)। পরিচালক অরিন্দম ভট্টাচার্যের (Arindam Bhattacharya) নতুন সিনেমা ‘অন্তর্ধান’ (Antardhaan) মুক্তি পেতে চলেছে আগামী ১০ ডিসেম্বর। ছবিটি মুক্তি পাওয়ার আগেই জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে ‘কুয়াশা’ গানটি। সামাজিক মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়েছে ভাইরাসের মতো। আর এর মধ্যেই এই গানটি নিয়ে অভিনব এক প্রতিযোগিতার আয়োজন করেছে সিনেমার মিউজিক পার্টনার ‘আমারা মিউজিক’ (Amara Muzik)।

আজ সেই প্রতিযোগিতার দিন। এই প্রতিযোগিতায় অংশ নেওয়ার জন্য গানের প্রথাগত তালিমের প্রয়োজন নেই। প্রয়োজন শুধু গানের প্রতি ভালোবাসা। নতুন গান শোনার পর নিজের মতো করে গুনগুন করে দু-বার গাইতে কার না ভালো লাগে! নিজের গলায় গানের সেই রেকর্ড সামাজিক মাধ্যমে পোস্ট করলেই পাওয়া যাবে তিমির বিশ্বাসের সঙ্গে সরাসরি দেখা করার সুযোগ। সঙ্গে আমারা মিউজিকের তরফ থেকে বিশেষ উপহার। তিমির বলছিলেন, “প্রতিযোগিতায় আমি নিজে বিশ্বাস করি না। কিন্তু এই যে অনেক মানুষ গানটা গাইছেন, তাঁদের মুখ দিয়ে আরও বেশি মানুষের কাছে ছড়িয়ে পড়ছে – এটা একটা দারুণ ব্যাপার।” গানটি গাওয়ার সময় তিনি নিজেও ফিরে গিয়েছিলেন ছোটোবেলার নস্টালজিয়ায়, এমনটাই বলছিলেন তিমির। একেবারে ট্র্যাডিশনাল মেলডি ঘরানার গান, যা শুনে ৮০-৯০ দশকের কিশোর-কিশোরীদের বড়ো হয়ে ওঠা – ঠিক তেমনভাবেই তৈরি হয়েছে গোটা গানটা। পরিচালক অরিন্দম ভট্টাচার্যও বলছিলেন, “আমাদের ছোটোবেলায় সিনেমার সঙ্গে তার গানের একটা অদ্ভুত যোগাযোগ থাকত। গানগুলো দিয়েই চিনতাম অনেক সিনেমাকে। সেটাই নিজের মতো করে গড়ে তোলার একটা চেষ্টা করেছি।”

পরিচালকের এই উদ্দেশ্যের সঙ্গে সমান সঙ্গত দিয়ে গিয়েছেন সঙ্গীত পরিচালক বিশ্বদীপ বিশ্বাস এবং গীতিকার প্রিয় চট্টোপাধ্যায়। তিমিরের কথায়, “গানটা তাঁরা তৈরি করেই রেখেছিলেন। আমি শুধু গেয়েছি। এর চেয়ে বেশি কিছু অবদান আমার নেই।” একদিকে হিমাচলপ্রদেশের পাহাড়ি দৃশ্যপট, তার সঙ্গে রহস্যের টানটান বুনট, আবার হারিয়ে যাওয়া মেয়ের প্রতি বাবা-মার ভালোবাসার অনুভূতি – এই তিন অনুভূতিকে একসঙ্গে ধরে রেখেছে এই সিনেমার গান। গাইতে গাইতে তিমির বিশ্বাস নিজেও যেন পৌঁছে গিয়েছিলেন সেই পাহাড়ি উপত্যকায়। “সে এক অদ্ভুত রোমাঞ্চ!” বলছিলেন তিনি। অবশ্য তা লকডাউনের বেশ কয়েক মাস আগেই। লকডাউন পেরিয়ে যেন আরও বেশি করে প্রাসঙ্গিক হয়ে উঠছে ‘অন্তর্ধান’ সিনেমার গান। নতুন বাংলা থ্রিলারের জন্য অপেক্ষা তো রয়েছেই। তবে ‘অন্তর্ধান’ যে তার গানের মাধ্যমেই ইতিমধ্যে বাজিমাত করে দিয়েছে, সেটা বলাই যায়।

Powered by Froala Editor

More From Author See More

Latest News See More