পুনর্জন্ম পেলেন এই মহিলা, মানবিকতার আরেক মুখ ধুবুলিয়ার মিঠুন

মাথাভর্তি পোকা। সঙ্গে গায়ের প্রচণ্ড দুর্গন্ধ। প্ল্যাটফর্মে পড়ে আছেন এক মহিলা। দাঁতে দাঁত চেপে সহ্য করছেন যন্ত্রণা। প্রত্যেকটা লোকের চোখেমুখে বিরক্তি ও ঘৃণা। ভয়ে সরেও যাচ্ছে বেশ কিছু লোক। থুতু ফেলতে-ফেলতেও যাচ্ছে কেউ কেউ।

এমনই দৃশ্য দেখা গিয়েছিল শনিবার, ধুবুলিয়া স্টেশনে। দীর্ঘক্ষণ দেহাতি ওই মহিলা ওভাবে পড়ে থাকলেও সাহায্য তো দূরের কথা, তাঁকে মানুষ বলেই গণ্য করেনি কেউ। অবশেষে এগিয়ে আসেন মিঠুন নামের এক স্থানীয় ব্যক্তি। মহিলাকে নিয়ে যান হাসপাতালে। ডাক্তাররা অপারেশন করে মাথা থেকে পোকাগুলি বের করেন। অপারেশন শেষ হলে, খাইয়েও দেওয়া হয় ওই মহিলাকে।

অজ্ঞাতপরিচয় ওই মহিলার সম্পর্কে জানা যায়নি কিছুই। কিন্তু অপারেশনের পর তাঁর হাসিমুখ ও যন্ত্রণাহীন কথাবার্তাই বুঝিয়ে দেয়, ভালো আছেন তিনি।

আর তাঁকে প্ল্যাটফর্ম থেকে হাসপাতালে নিয়ে এলেন যে ব্যক্তি, মিঠুন, যিনি মাথা থেকে অতি যত্নে বের করে দিয়েছিলেন পোকাগুলিও, তাঁকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন সকলেই। অসংখ্য লোকের মধ্যে থেকে একজন অন্তত এগিয়ে এসেছেন, দায়িত্ব নিয়েছেন চিকিৎসার - এটা বুঝিয়ে দেয়, মানবিকতা এখনও জীবিত। মানুষকে ঘৃণা নয়, ভালোবাসা ও যত্ন দিয়েই সারিয়ে তোলা সম্ভব - এই প্রাচীন প্রবাদটিকে আরও একবার প্রমাণ করলেন মিঠুন।

ছবি ঋণ - ফেসবুক

More From Author See More

Latest News See More